রবিবার, ০৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৮:৪৩ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
ভোমরার শ্রীরামপুরে জননেত্রী শেখ হাসিনা সরকারের উন্নয়ন কর্মকান্ড তুলে ধরে উঠান বৈঠক সাতক্ষীরা পৌরসভার ৬নং ওয়ার্ডে অসহায় শীতার্ত মানুষের মাঝে শীতবন্ত্র কম্বল বিতরণ বাংলাদেশ আ’লীগ স্বেচ্ছাসেবক লীগের সদস্য সংগ্রহ ও সংগঠনকে সুসংগঠিত করার লক্ষ্যে তৃণমূল প্রতিনিধি সভা আশাশুনিতে ট্রাকের ধাক্কায় গৃহবধূ নিহত সাতক্ষীরা মেডিকেল অ্যাসিস্ট্যিান্ট ট্রেনিং স্কুলের শিক্ষার্থীরাদের ৫ দফা দাবিতে ক্লাস বর্জন ও সড়ক অবরোধ সাতক্ষীরায় যৌতুকের দাবিতে স্ত্রীকে শ্বাসরোধ করে হত্যা: স্বামীর ফাঁসির নির্দেশ তালায় সাইবার অপরাধ প্রতিরোধে শিক্ষার্থী সমাবেশ অনুষ্ঠিত তালায় শ্রীরামকৃষ্ণ মন্দিরের উদ্বোধন ভোমরা স্থল বন্দর প্রেস ক্লাবের নব নির্বাচিত কমিটির সভা অনুষ্ঠিত জনগণের ক্ষতি হবে এমন কোন কাজ করা যাবে না-ঝাউডাঙ্গার রাজবাড়িতে বীর মুক্তিযোদ্ধা এমপি রবি

সরকারি নীতিমালা উপেক্ষা করে সাতক্ষীরার কাথন্ডায় গভীর নলকূপ বসানোর চেষ্টার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন

নিজস্ব প্রতিবেদক:
  • প্রকাশের সময় : শনিবার, ৬ ফেব্রুয়ারী, ২০২১
  • ১২২ বার পড়া হয়েছে

সাতক্ষীরা সদর উপজেলার কাথন্ডা গ্রামে মোঃ জুলফিকার আলী (জুলু) কর্তৃক উচ্চ আদালতের আদেশ ও সরকারি নীতিমালা অমান্য করে একই স্থানে আরো একটি গভীর নলকূপ বসিয়ে পানি সরবাহের পায়তারা চালাচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

শনিবার দুপুরে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে সাতক্ষীরা সদর উপজেলার কাথন্ডা গ্রামের মৃত খোদ বক্সের ছেলে মোঃ সিরাজুল ইসলাম এই অভিযোগ করেন।

লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, সরকার অনুমোদিত বিআরডিবি’র মাধ্যমে ১৯৮৯ সালে সাতক্ষীরা সদর উপজেলার কাথন্ডা মৌজার ১৭০ নং খতিয়ানের ৬৮৫ দাগে ৬ শতক জমিতে একটি গভীর নলকূপ বসাই। সেই থেকে এই নলকূপের মাধ্যমে আশেপাশের প্রায় ৩৩ একর জমিতে স্থনায় কৃষকের  ইরি ব্লাকে পানি সরবরাহ করে আসছি। কিন্তু পূর্ব শত্রুতার জের ধরে কাথন্ডা গ্রামের মৃত আফসার আলীর ছেলে মোঃ জুলফিকার আলী (জুলু) ও মৃত সামছুর রহমানের ছেলে সাইফুল ইসলাম গত ৬/০৭/২০ তারিখে একই এলাকায় আমাদের নকূপ থেকে আনুমানিক ১৫০ মিটারের মধ্যে আরো একটি
গভীর নলকূপ বসানো শুরু করে। কিন্তু সরকারি নীতিমালা অনুযায়ী একটি গভীর নলকূপ এর ৮০০ মিটারের মধ্যে আর কোন গভীর নলকূপ বসবে না। এছাড়া সেচ কমিটির অনুমোদন ছাড়া কোন গভীর নলকূপ বসানো যাবে না। এঘটনায় আমরা সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও সভাপতি উপজেলা সেচ কমিটি, বিএডিসি ও উপজেলা চেয়ারম্যানসহ উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের কাছে লিখিত অভিযোগ দেই।

সিরাজুল ইসলাম আরো বলেন, আমার অভিযোগে প্রেক্ষিতে ৭/০৭/২০ তারিখ সকাল ১০ টায় বিএডিসি’র
পক্ষ থেকে সরেজমিনে তদন্তে এসে অভিযোগের সত্যতা প্রমানিত হওয়ায় জুলফিকার গংদের নকূপ স্থাপন বন্ধ রাখার জন্য বলা হয় এবং লাল ফ্লাগ স্থাপান করা হয়।
এছাড়া ৯/০৭/২০ তারিখে বিএডিসি’র সহকারি প্রকৌশলী মোঃ হাফিজ ফারুক তার তদন্ত প্রতিবেদনে নীতিমালা অনুযায়ী সিরাজুল ইসলামের অভিযোগের সত্যতা প্রমানিত হয়েছে এবং জুলফিকার আলীর গভীর নলকূপ স্থপানের কাজ সরকারি নীতিমালা পরিপন্থি হওয়ায় আপতত স্থগিত রাখা যেতে পারে বলে উল্লেখ করেন।

তিনি অভিযোগ করে বলেন, সরকারি নির্দেশনা উপেক্ষা করে জুলফিকার আলী লালফ্লাগ তুলে ফেলে কাজ শুরু করে। আমরা নিষেধ করলে লাঠিসোটা নিয়ে আমাদেরকে
মারপিট করতে আসে। পরে আমরা উচ্চ আদালতে গেলে আদালত ইনজাকশন জারি করেন।

এঘটনায় জুলু গংরা আরো ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে এবং আমাদেরকে মিথ্যে মামলায় জড়িয়েহয়রানি করাসহ খুন জখমের হুমকি ধামকি দিতে থাকে। এঘটনায় আমরা চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে একটি ফৌজদারি মামলা দায়ের করি। পরে এডিএম
কোর্টে ১৮৫ ধারায় মামলা করি। কিন্তু এসবর পরও জুলফিকার আলী গংরা উচ্চ আদালতের আদেশ ও সরকারি নীতিমালা অমান্য করে একই স্থানে গভীর নলকূপ স্থপানের কাজ অব্যহত রাখার চেষ্টা করছে। একই সাথে জুলফিকার আমাদের গভীর নলকূপের মেশিন চালাাতে বাধা দিচ্ছে এবং তার মেশিন চালানোর পায়তারা করছে।

উচ্চ আদালতের আদেশ অমান্য ও সরকারি নীতিমালা উপেক্ষা করে জুলফিকার আলী গংরা যাতে কাথন্ডা মৌজায় একই স্থানে কোন গভীর নলকূপ চালু করতে না পারে তার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণে তিনি সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার ও বিএডিসি কর্তৃপক্ষসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা
করেন।

বি: দ্র: প্রতিবেদনটি সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের ই-মেল থেকে প্রেরণকৃত।

সংবাদ টি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

এ বিভাগের আরো সংবাদ

আজকের নামাজের সময়সুচী

  • ফজর
  • যোহর
  • আছর
  • মাগরিব
  • এশা
  • সূর্যোদয়
  • ৫:২৪ পূর্বাহ্ণ
  • ১২:১৬ অপরাহ্ণ
  • ১৬:১১ অপরাহ্ণ
  • ১৭:৫১ অপরাহ্ণ
  • ১৯:০৬ অপরাহ্ণ
  • ৬:৩৭ পূর্বাহ্ণ
©2020 All rights reserved
Design by: SHAMIR IT
themesba-lates1749691102
error: Content is protected !!