সোমবার, ৩০ জানুয়ারী ২০২৩, ০২:০৭ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
২ দিন ব্যাপী কর্মী দক্ষতা উন্নয়ন প্রশিক্ষণের সমাপনী মানবাধিকার কর্মী ও সাংবাদিক রঘুনাথ খাঁর মুক্তির দাবি কলারোয়া পৌর প্রেসক্লাবের নেতৃবৃন্দের কলারোয়ায় শিক্ষার মান বৃদ্ধি করনে ৫৮ সহকারী শিক্ষক নিয়োগ।।যোগদানোত্তর সংবর্ধনা কলারোয়ায় অসহায় মানুষের পাশে দাড়ালেন জেলা পরিষদ সদস্য আলহাজ্ব শেখ আমজাদ হোসেন স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ার স্বপ্ন বাস্তবায়নে কাজ করে যাচ্ছেন জননেত্রী শেখ হাসিনা-বীর মুক্তিযোদ্ধা এমপি রবি সাতক্ষীরায় দি হাঙ্গার প্রজেক্ট বাংলাদেশের উদ্যোগে শিক্ষার্থীদের নিয়ে সামাজিক সম্প্রীতি বিষয়ক কর্মশালা সাতক্ষীরা জেলা রোভারের বার্ষিক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত গোপালগঞ্জে বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্যদিয়ে বিশ্ব কুষ্ঠ দিবস পালিত তালায় শিশু নির্যাতনের ঘটনায় গ্রেফতার-২ তালায় ট্রাকের ধাক্কায় মটরসাইকেল আরোহী নিহত

সাতক্ষীরা জেলার সর্বত্র চলছে রমরমা কেরাম বাের্ডের জুয়ার আসর 

মোঃ সদরুল কাদির (শাওন)::
  • প্রকাশের সময় : বুধবার, ২৭ জানুয়ারী, ২০২১
  • ২৩৬ বার পড়া হয়েছে

সাতক্ষীরা জেলার প্রায় সর্বত্র চলছে কেরাম বাের্ড নামক জুয়া। উপজেলার প্রায় প্রতিটি বাজারে সন্ধ্যার পর থেকে শুরু হয় এই জুয়া খেলা। রাত যত গভীর হয় টাকার অংকও বাড়তে থাকে। বাহিরে থেকে দেখলে মনে হয় নিছক কেরাম বোর্ড খেলা কিন্তু এই খেলার আড়ালে চলছে রমরমা জুয়া।

শুধু তাই নয়, এই খেলার বিরতির মধ্যে যে চলে নেশার আসর। কেউ কেরাম খেলে আর তাদের সহযোগীরা চা-বিড়ি-সিগারেট নিয়ে সীমাবদ্ধ থাকে না। ইয়াবা, ফেনসিডিল, গাঁজাসহ সব ধরনের মাদকদ্রব্য এইসব জুয়ার স্পটের পাশে হাতের নাগালে থাকে।

একদিকে জুয়া অন্যদিকে নেশা এই দুইয়ে মিলে মিশে একাকার হয়ে যায়। আর এই জুয়ার টাকা যোগাড় করতে মরিয়া হয়ে উঠেছে এক শ্রেণীর মায়ে টাড়ানো বাপে খ্যাদানো বখাটে যুবক সম্প্রদায়। শহরে দিনের পর দিন চুরি, ছিনতাই, খুন, ধর্ষণ বেড়েই চলেছে।

সরজমিনে দেখা যায়, সাতক্ষীরা সদর উপজেলার কাশেমপুর বেতলা বাইপাস সংলগ্ন অধিকাংশ চায়ের দোকানে কেরাম বোর্ড খেলা হয়। কিন্তু আসলে কি তাই? একটু খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ৮-১০ জন মিলে ৫০০-১০০০ টাকা করে জমা দিয়ে জুয়ার আসর তৈরি করে। চলতে থাকে খেলা। চ্যাম্পিয়ান ও রানার্স আপ ঐ সব টাকা ভাগ করে নেয়। এই রকম খেলার বিজয়ীদের যখন আঙ্গুল ফুলে কলাগাছ, তখন পরাজিতরা পূণরায় খেলার জন্য টাকা যোগাড় করতে মরিয়া হয়ে উঠে। এবং জড়িয়ে পড়ে অপরাধের সাথে। কেউ তার পরিবারের সদস্যদের অসুস্থতার কথা বলে টাকা ধার করে আনে আবার কেউ চুরি, ছিনতাই।

সাতক্ষীরা সদর উপজেলার বেতলা বাইপাস ছাড়াও আগরদাড়ি’র মাছ বাজারের মধ্যে, রাজনগর, কাশেমপুর, মৈত্রপুর, বাকাল, ঝুটিতলা, সরকারি কলেজ মোড়, আলীপুর চেকপোস্ট, ছয়ঘরিয়া, মাধবকাঠি, ঝাউডাঙা সহ অধিকাংশ চায়ের দোকানে কেরাম বোর্ড খেলা হয়। যেটা নিছক কেরাম বোর্ড খেলা নয়, আড়ালে চলছে জুয়ার আসর।

উপজেলার তালা বাজার, তালা বীজ মােড়, খানপুর হাজরাকাটি, জেঠুয়া, মহান্দী, খলিলনগর, মাগুরা সহ উপজেলার প্রায় সকল বাজারে সন্ধ্যার পর হতে শুরাে হয় কেরাম বাের্ড নামক জুয়ার আসর। আর এই আসরের কারনে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে সাধারণ দিন মুজুর,খেটে খাওয়া সাধারণ জনগণ সহ স্কুল পড়য়া ছেলেরা। এরা সারা দিন যে টাকা রােজগার করছে তা সব সন্ধ্যার পরে কেরাম বাের্ড নামক জুয়ার আসরে এসে খরচ করে চলে যাচ্ছে।

এ ছাড়া, এই কেরামবাের্ড নামক জুয়ার কারনে তালায় চুরি, ডাকাতি বেড়ে গেছে। সম্প্রতি তালা সদরে অবস্থিত উপজেলা হাসপাতালের কোয়াটারে চুরি হলেও কোন প্রকার সুরহা করতে পারিনি প্রশাসন। গত কিছুদিন আগে তালার প্রবীন সাংবাদিক ফেসবুকে পােষ্ট দেন এই কেরাম বাের্ড নামক জুয়ার বিষয়ে তা হবুহ তুলে ধরা হলাে তালায় কেরামবাের্ড এর মাধ্যমে চলছে রমরমা জুয়ার আসর। প্রতি রাতে বাের্ড মালিকের আয় হচ্ছে ১০ হাজার টাকা। জুয়াড়ীদের যাচছে হাজার হাজার টাকা। জোয়ার টাকা যেগাড় করতে এলাকায় চুরি ছিনতাই চলমান রয়েছে। প্রত্যেক বাজারে প্রকাশ্যে জুয়ার আসর বসছে জনসম্মুখে। রাজনৈতিক গডফাদারদের ছত্রছায়ায় চলছ রমরসা জুয়ার আসর।

এমনিভাবে সাতক্ষীরা জেলার সকল উপজেলার হাট-বাজারে রমরমা জুয়ার আসর চলমান রয়েছে। এখানে অভিযান কবে হবে? এছাড়াও জুয়ার কারনে পারিবারিকভাবে বহু পরিবারের মাঝে অশান্তি বিরাজ করছে। কেরাম বোর্ডের অন্তরালে জুয়ার আসর বন্ধ করাসহ জেলায় সুন্দর পরিবেশ ফিরিয়ে আনার জন্য সাতক্ষীরা জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমান পিপিএম (বার) সহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের অতিদ্রুত হস্তক্ষেপ কামনা করেছে সুশীল সমাজের নেতৃবৃন্দসহ স্থানীয় এলাকাবাসী।

সংবাদ টি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

এ বিভাগের আরো সংবাদ

আজকের নামাজের সময়সুচী

  • ফজর
  • যোহর
  • আছর
  • মাগরিব
  • এশা
  • সূর্যোদয়
  • ৫:২৭ পূর্বাহ্ণ
  • ১২:১৪ অপরাহ্ণ
  • ১৬:০৩ অপরাহ্ণ
  • ১৭:৪৩ অপরাহ্ণ
  • ১৯:০০ অপরাহ্ণ
  • ৬:৪১ পূর্বাহ্ণ
©2020 All rights reserved
Design by: SHAMIR IT
themesba-lates1749691102
error: Content is protected !!