রবিবার, ২৬ মে ২০২৪, ০৮:৫৬ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
অভিমানী কবি’কে-কবি শেখ মফিজুর রহমান বিনোদনের মাধ্যমে সুস্থ সমাজ গড়তে হবে-এসপি মুহাম্মদ মতিউর রহমান সিদ্দিকী কালিগঞ্জের উকশায় লক্ষ দর্শকের উপস্থিতিতে ঘৌড়দৌড় দেবহাটায় কমিউনিটি ক্লিনিকের সেবারমান বিষয়ক অভিমত সভা দেবহাটায় কমিউিনিটি ক্লিনিকের সেবার মানদন্ড পর্যবেক্ষন সভা সড়কে চালক,পথচারী ও সর্বসাধারণের সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে মোটরযানের উপর মোবাইল কোর্ট এক যুগে ‘ঢাকা টাইমস’ পাঠকের আস্থা অর্জন করতে সক্ষম হয়েছে-এমপি আশু সাতক্ষীরায় পৃথক সড়ক দূর্ঘটনায় এক কলেজ ছাত্রসহ দুই জনের মৃত্যু সাতক্ষীরায় তিন দিন ব্যাপী আম মেলার উদ্বোধন সাতক্ষীরা জেলা ফুটবল এসোসিয়েশনের নির্বাচনে নাসের-কবির-শাহজাহান পরিষদের প্যানেল পরিচিতি সভা

শ্বোশুর বাড়ির লোকজনদের নির্যাতনে পাটকেলঘাটার গৃহবধু মৌসুমী সাহার আত্মহত্যা

রঘুনাথ খাঁ, জেষ্ঠ প্রতিবেদক:
  • প্রকাশের সময় : বুধবার, ২৬ আগস্ট, ২০২০
  • ২৭৪ বার পড়া হয়েছে

ছোট কাকা রাহুলদেব সাহা ঢাকায় একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকুরি করে। তাকে বাবার চেয়ে বেশি ভালোবাসতো ঠাকুরদাদা দীনবন্ধু সাহা ও ঠাকুর মা স্বপা রানী সাহা। কাকুকে সকল সম্পত্তি দিয়ে দেব বলে আমাদেরকে বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দিতে চেয়েছিল ঠাকুরমা ও ঠাকুর দাদা। বাবা কলেজে গেলে মাকে মারপিট করতেন তারা। আজে বাজে ভাষায় গালিও দিতেন তারা মাকে। গুন্ডা লেলিয়ে দিয়ে আমাদের ঘরে হামলা চালিয়েছেন ঠাকুরমা ও ঠাকুর দাদা। আর কতো সহ্য করবে মা। অবশেষে কাকার ইন্ধনে ঠাকুরমা ও ঠাকুরদাদার শারিরিক ও মানসিক নির্যাতন সহ্য করতে আত্মহত্যার পথ ই বেছ নিল মা।

সাতক্ষীরার তালা উপজেলার পাটকেলঘাটা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণীর ছাত্রী তমিষ্ঠা সাহা বুধবার পাটকেলঘাটা শ্মশান মায়ের সৎকারের সময় সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব এভাবেই তার মা মৌসুমী সাহার মৃত্যুর বর্ণনা দেয়।

মাকে মৃত্যুমুখে ঠেলে দেওয়ার জন্য দায়ীদের দৃষ্টামূলক শাস্তি দাবি জানিয়ে তমিষ্ঠা বলেন, মা মঙ্গলবার বিকেল তিনটার দিকে নিজ ঘরের সিলিং ফ্যান ঝুলে আত্মহত্যার আগে নিজ হাতে আত্মহত্যার জন্য দায়ীদের নাম লিখে গেছে। পুলিশ এখনো তাদের ধরতে পারেনি। মায়ের অবর্তমানে তার লেখাপড়ার ক্ষতি হবে, তাকে নানান জ্বালায় জ্বলতে হবে এমন সব কথা বলার একপর্যায়ে কান্নায় ভেঙ্গে পড়ে তমিষ্ঠা। দেবহাটা উপজেলার দক্ষিণ পারুলিয়া গ্রামের স্বপন সাহা জানান, তালা থানাধীন বলরামপুরের দীনবন্ধু সাহার ছেলে উৎপল সাহার সঙ্গে ২০০৬ সাল পারিবারিকভাবে বিয়ে হয়েছিল তার মেয়ে মৌসুমীর। বিয়ের দু’ বছর পর তমিষ্ঠা সাহা নামের একটি মেয়ে হয়। বেহাই বহান ও তাদের ছোট ছেলে রাহুল দেব সাহার শারিরিক ও মানসিক নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে মৌসুমীকে শেষ পর্যন্ত আত্মহত্যা করতে হলো। জামাতা উৎপল সাহা জাতপুর টেকনিক্যাল কলেজের প্রভাষক। উৎপল কলেজ যাওয়ার পরপরই নির্যাতনের খাড়া নামতো মৌসুমীর উপর। তাকে অনেকবার জানিয়েছে মৌসুমী। উৎপলকে সে বলেছিল বাড়ি ছেড়ে দিলে যদি বাবা ও মা খুশী হয় তাহলে এখান থেকে আর লাভ কি। কিন্তু উৎপল বাড়ি ছাড়তে চায়নি। পৈতৃক ভিটে ছেড়ে সে যাবেও বা কেন? শেষ পর্যন্ত ছোট্ট মেয়েটির মুখের দিকে না তাকিয়ে মৃত্যুকে বেছে নিল মৌসুমী। পৃথিবীতে এমনভাবে কোন মেয়েকে যেন মৃত্যুকে মেনে নিতে না হয়। মৌসুমীকে আত্মহত্যার জন্য বেহাই, বেহান দায়ী বলে সুইসাইড নোটে লিখে গেছে। নেপথ্য ছোট ছেলে রাহুলদেব সাহা বাবা ও মাকে দিয়ে বড় ভাই ও বউদিকে বাড়ি থেকে বিতাড়িত করতে চেয়েছিল। সে কারণে আত্মহত্যার জন্য তিনজনই দায়ী তাই তিনি মঙ্গলবার রাতে বেহাই, বেহান ও রাহুল দেব এর বিরুদ্ধে পাটকেলঘাটা থানায় মামলা দিয়েছেন। সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালের মর্গে ময়না তদন্ত শেষে বুধবার সন্ধ্যায় মৌসুমীর লাশ পাটকেলঘাটা শ্মশানে সৎকার করা হয়েছে।

পাটকেলঘাটা থানার তদন্ত ওসি জেল্লাল হোসেন বলেন, মৌসুমী সাহার মৃত্যুটা দুর্ভাগ্যজনক। মৃতের বাবার এজাহারটি তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সংবাদ টি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

এ বিভাগের আরো সংবাদ

আজকের নামাজের সময়সুচী

  • ফজর
  • যোহর
  • আছর
  • মাগরিব
  • এশা
  • সূর্যোদয়
  • ৩:৫০ পূর্বাহ্ণ
  • ১১:৫৯ পূর্বাহ্ণ
  • ১৬:৩৪ অপরাহ্ণ
  • ১৮:৪২ অপরাহ্ণ
  • ২০:০৬ অপরাহ্ণ
  • ৫:১২ পূর্বাহ্ণ
©2020 All rights reserved
Design by: SHAMIR IT
themesba-lates1749691102
error: Content is protected !!