সোমবার, ৩০ জানুয়ারী ২০২৩, ০১:৫৩ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
২ দিন ব্যাপী কর্মী দক্ষতা উন্নয়ন প্রশিক্ষণের সমাপনী মানবাধিকার কর্মী ও সাংবাদিক রঘুনাথ খাঁর মুক্তির দাবি কলারোয়া পৌর প্রেসক্লাবের নেতৃবৃন্দের কলারোয়ায় শিক্ষার মান বৃদ্ধি করনে ৫৮ সহকারী শিক্ষক নিয়োগ।।যোগদানোত্তর সংবর্ধনা কলারোয়ায় অসহায় মানুষের পাশে দাড়ালেন জেলা পরিষদ সদস্য আলহাজ্ব শেখ আমজাদ হোসেন স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ার স্বপ্ন বাস্তবায়নে কাজ করে যাচ্ছেন জননেত্রী শেখ হাসিনা-বীর মুক্তিযোদ্ধা এমপি রবি সাতক্ষীরায় দি হাঙ্গার প্রজেক্ট বাংলাদেশের উদ্যোগে শিক্ষার্থীদের নিয়ে সামাজিক সম্প্রীতি বিষয়ক কর্মশালা সাতক্ষীরা জেলা রোভারের বার্ষিক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত গোপালগঞ্জে বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্যদিয়ে বিশ্ব কুষ্ঠ দিবস পালিত তালায় শিশু নির্যাতনের ঘটনায় গ্রেফতার-২ তালায় ট্রাকের ধাক্কায় মটরসাইকেল আরোহী নিহত

আশাশুনিতে জরিমানা দিয়ে মুক্তির ১৪ ঘণ্টা পর ফের বসল জুয়ার আসর

✍️রঘুনাথ খাঁ🔏জেষ্ট প্রতিবেদক ☑️
  • প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার, ৫ আগস্ট, ২০২১
  • ১২৯ বার পড়া হয়েছে

সাতক্ষীরার আশাশুনি উপজেলার গোয়ালডাঙা জুয়ার আসর থেকে আটককৃত চার জুয়াড়ি বুধবার রাত ১০টায় মোবাইল কোর্টের জরিমানা পরিশোধ করে মুক্তি পেয়েছেন। অভিযোগ, মুক্তির ১৪ ঘণ্টা পার না হতেই তারা একই স্থানে আবারো জুয়ার আসর পরিচালনা করছেন।

আশাশুনি থানার সহকারি উপপরিদর্শক সাইফুল ইসলাম জানান, দীর্ঘদিন গোয়ালডাঙা গ্রামের বুড়িরভিটায় জুয়ার বোর্ড পরিচালনা করে আসছিলেন উপজেলার গোয়ালডাঙা গ্রামের মোসাদ্দেকের চেলে টিক্কা, একই গ্রামের গিয়াসউদ্দিনের ছেলে মনির হোসেন, ফজলু গাজীর ছেলে ফরহাদ হোসেন ও ফকরাবাদ গ্রামের চাকলা সরদারের ছেলে আঙুর, আনার, ডালিম ও রবিউল।

বুধবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে পুলিশ টিক্কা, মনির হোসেন, ফরহাদ ও আঙুরকে আটক করে। একই দিনে শোভনালী থেকেও চারজনকে আটক করা হয়। বুধবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে মোবাইল কোর্টের দায়িত্বপ্রাপ্ত নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নাজমুল হুসাইন খান তাদের প্রত্যেককে এক হাজার ১০০ টাকা করে জরিমানা করেন। জরিমানার টাকা পরিশোধ করে তারা রাত ১০টার দিকে মুক্তি পান।

গোয়ালডাঙা গ্রামের আজিজুল ইসলাম ও সোহারাব হোসেন জানান, এক মাসেরও বেশি সময় ধরে গোয়ালডাঙার বুড়িরভিটায় জুয়ার আসল পরিচালিত হচ্ছিল। বামনডাঙার রবিউল ও কমপক্ষে ছয়টি মামলার আসামী আনার, গোয়ালডাঙার ডালিম ও টিক্কা ছাড়াও মনির, ফরহাদ ও আঙুর স্থানীয় প্রশাসন, ক্ষমতাসীন দলের কতিপয় নেতা ও স্থানীয় কয়েকজন সাংবাদিকদের ম্যানেজ করেই তারা প্রকাশ্যে তাবু টানিয়ে এ জুয়ার বোর্ড পরিচালনা করে আসছিলো। বিষয়টি নিয়ে গত পহেলা আগষ্ট বিভিন্ন পত্র পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশিত হয়। এরই জের ধরে গত বুধবার দুপুরে টিক্কা, মনির, আঙুর ও ফরহাদকে পুলিশ গ্রেপ্তার করে। গ্রেপ্তারের পরপরই তাদেরকে ছাড়িয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য তৎপরতা শুরু করে কয়েকজন। এজন্য দর ওঠে লাখ টাকা। অবশেষে রাত ১০টায় মোবাইল কোর্টের জরিমানা করলে তা পরিশোধ করার পর তারা মুক্তি পায়। মুক্তি পাওয়ার ১৪ ঘণ্টা না কাটতেই বৃহষ্পতিবার দুপুর ১২টা থেকে একই স্থানে আবারো জোরে সোরে শুরু হয়েছে তিন কার্ড তাসের জুয়া। এ ঘটনায় তারা পুলিশের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন।

সাতক্ষীরা জজ কোর্টের অতিরিক্ত পিপি অ্যাড. ফাহিমুল হক কিসলু জানান, পুলিশ জুয়ার বোর্ড থেকে চারজনকে ধরা আনার ৯ ঘণ্টা পর মোবাইল কোর্ট বসিয়ে তাদেরকে জরিমানা করার বিধান নেই। কারণ মোবাইল কোর্ট নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেটের উপস্থিতিতে পরিচালিত হয়। যেখানে অপরাধ সংগঠিত হয় সেখানেই জেল বা জরিমানা করার বিধান রয়েছে। শুধু আশাশুনিতে নয়, অন্য উপজেলায়ও এ ধরণের কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে বলে বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যম থেকে তারা জানতে পারছেন।

এ ব্যাপারে বৃহষ্পতিবার বিকেল চারটার দিকে আশাশুনি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা গোলাম কবীরের সঙ্গে কথা বলার চেষ্টা করলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

সংবাদ টি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

এ বিভাগের আরো সংবাদ

আজকের নামাজের সময়সুচী

  • ফজর
  • যোহর
  • আছর
  • মাগরিব
  • এশা
  • সূর্যোদয়
  • ৫:২৭ পূর্বাহ্ণ
  • ১২:১৪ অপরাহ্ণ
  • ১৬:০৩ অপরাহ্ণ
  • ১৭:৪৩ অপরাহ্ণ
  • ১৯:০০ অপরাহ্ণ
  • ৬:৪১ পূর্বাহ্ণ
©2020 All rights reserved
Design by: SHAMIR IT
themesba-lates1749691102
error: Content is protected !!